সেই দুই বোনের বাবার দেড় কোটি টাকা উধাও

গুলশানে বাড়ির সামনে অবস্থান করা দুই বোন মুশফিকা ও মোবাশ্বেরার বাবা প্রয়াত মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদের ব্যাংকে রাখা দেড় কোটি টাকার হিসাব মিলছে না।

অ’ভিযোগ উঠেছে, স্বামীর মৃ’ত্যুর সংবাদ গো’পন করে সিটি ব্যাংকের গুলশান শাখা থেকে চেক মা’রফত ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা তুলে নিয়েছেন প্রয়াত জগলুলের দ্বিতীয় স্ত্রী’ আঞ্জু কাপুর।

মৃ’ত্যুর পর ম্যানডাটি ক্ষমতা অকার্যকর হলেও তা গো’পন করে টাকা উঠানোর অ’ভিযোগে গুলশান থা’নায় একটি প্রতারণা মা’মলা দায়ের করেন বড় বোন মুশফিকা মোস্তফা।

দুই বোন এবং তাদের দ্বিতীয় মা আঞ্জু কাপুরের সম্পত্তি দাবির সপক্ষে কাগজপত্র হলফনামা আকারে দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাই’কোর্ট। হাই’কোর্টের আদেশের পর ব্যাংক হিসাবের স্টেটমেন্ট সংগ্রহ করতে গিয়ে এমন অস্বাভাবিক লেনদেন চোখের পড়ে দুই বোনের।

মা’মলার এজাহারে বাদী মুশফিকা মোস্তফা অ’ভিযোগ করেন, আমা’র বাবা ১০ অক্টোবর এভা’রকেয়ার হাসপাতা’লে মৃ’ত্যুবরণ করেন। পিতার মৃ’ত্যুর আগে আঞ্জু কাপুর ব্যাঙ্গালোর ইন্ডিয়া থেকে এক ভা’রতীয় নারীকে তার গৃহপরিচারিকা

হিসেবে নিয়োগ করেন। আমা’র বাবার মৃ’ত্যুর পর তার মৃ’ত্যুর সংবাদ নিয়ে গত ১২ অক্টোবর আমি সিটি ব্যাংকের গুলশান শাখা গেলে, ব্যাংক থেকে জানানো হয় গতকাল ১১ অক্টোবর আঞ্জু কাপুর ব্যাংকে এসে টাকা তুলে নিয়ে গেছেন। বাবার মৃ’ত্যুর বিষয়টি ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানেন না।

বিষয়টি আ’দালত পর্যন্ত গড়ালে ৩ নভেম্বর হাই’কোর্ট দুই বোন এবং তাদের বাবার দ্বিতীয় স্ত্রী’র আঞ্জু কাপুরের সম্পত্তি দাবির সপক্ষে কাগজপত্র হলফনামা আকারে আ’দালতে দাখিল করতে নির্দেশ দেন। পাশাপাশি মোস্তফা জগলুল

ওয়াহিদের সব ব্যাংক হিসাবের লেনদেন পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বলে আদেশ দেন। একইসঙ্গে গুলশানের (২-এ ৯৫ নম্বর) ওই বাড়িতে থাকা জিনিসপত্র কোনও পক্ষ বাইরে নিতে পারবে না এবং দুই বোনের নিরাপত্তা অব্যাহত রাখতে গুলশান থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তাকে (ওসি) নির্দেশ দেওয়া হয়।

মুশফিকা মোস্তফা বলেন, হাই’কোর্টের আদেশের পর আমি ১৫ ডিসেম্বর বাবার সিটি ব্যাংকের হিসেবে স্টেটমেন্ট সংগ্রহ করি। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ আমাকে ব্যাংক স্টেটমেন্ট দিলে আমি দেখতে পাই, বাবার মৃ’ত্যুর পরের দিন আনুমানিক ১০টা

থেকে চারটের মধ্যে আমা’র বাবার হিসাব থেকে চেক দিয়ে ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা নগদ উত্তোলন করা হয়েছে। ব্যাংক

কর্তৃপক্ষকে টাকা উত্তোলনের বিষয়ে প্রশ্ন করলে তারা আমাকে জানান, আঞ্জু কাপুর আমা’র বাবার মৃ’ত্যুর খবর গো’পন করে টাকা উত্তোলন করেছেন।

মুশফিকা মোস্তফা বলেন, প্রচলিত আইন অনুযায়ী আমা’র বাবার মৃ’ত্যুর পর তার আর ম্যানডাটি ক্ষমতা বলবত থাকে না। তাই সে ব্যাংকে আমা’র বাবার মৃ’ত্যুর খবর অবগত না করে প্রতারণার আশ্রয় নেন।

মা’মলার ত’দন্তকারী কর্মক’র্তা এসআই শামীম হোসেন বলেন, মা’মলা’টি ত’দন্তাধীন, আমি ত’দন্ত করছি। এখানে পুরো বিষয়টি পরিষ্কার, ক্লুলেস কিছু নেই। মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদ সাহেব ১০ অক্টোবর মা’রা যান। তার মা’রা যাবার সংবাদ

গো’পন করে ১১ অক্টোবর আঞ্জু কাপুর সিটি ব্যাংকের ১৩৬ গুলশান অ্যাভিনিউ শাখা থেকে চেক মা’রফত নগদ ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা উত্তোলন করেন। ত’দন্ত শেষে সব কিছু জানানো যাবে।

প্রসঙ্গত, গত অক্টোবরে বাবার মৃ’ত্যুর পর মালিকানা নিয়ে বিরোধে গুলশান ২-এ ৯৫ নম্বর সড়কের ৪ নম্বর বাড়ির

সামনে অবস্থান নেন দুই বোন। তাদের দাবি, বাড়ির দখল বাবার দ্বিতীয় স্ত্রী’ আঞ্জু কাপুরের হাতে। তিনি কিছুতেই ওই বাড়িতে তাদের ঢুকতে দিচ্ছেন না।

পরে এই দুই বোনের বাড়ির সামনে অবস্থান নিয়ে গণমাধ্যমে একাধিক সংবাদ আসায় বিচারপতি মো. নজরুল ইস’লাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের ভা’র্চুয়াল হাই’কোর্ট বেঞ্চ বাড়িতে প্রবেশ ও সেখানে তাঁদের অবস্থান নিশ্চিতে

অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। গুলশান থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তাকে (ওসি) নির্দেশনা বাস্তবায়ন বিষয়ে ওই দিন রাতেই আ’দালতকে জানাতে বলা হয়। সুত্র: বাংলা ট্রিবিউন

Check Also

বাস স্ট্যান্ডের পাশে পড়েছিল বস্তাভর্তি টাকা

নাটোরের বড়াইগ্রামে বনপাড়া বাজারে পাবনা বাস স্ট্যান্ডের পাশে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি টাকার বস্তা পাওয়া গেছে। …