মৃত মায়ের দুধ খেতে বারবার ছুটে যাচ্ছে বাছুর

দুধ খেতে না পেরে ক্ষুধার জ্বালায় মায়ের কাছে বারবার ছুটে যাচ্ছে বাছুরটি। কিন্তু বেঁচে নেই মা। মৃত মায়ের কাছ থেকে

বাছুরটিকে বারবার সরিয়ে দিচ্ছেন খামার মালিক বাবুল মিয়া। তবে কোনোভাবেই তাকে আটকানো যাচ্ছে না। ক্ষুধার্ত

বাছুরকে এমন ছটফট করতে দেখে উপস্থিত অনেকের চোখ দিয়েই পড়েছে পানি।শুধু এই বাছুরটির মা-ই নয়, দুর্বৃত্তদের

দেয়া বিষে খামারের ২৬টি গরুর মধ্যে মারা গেছে ১৩টি। অচেতন হয়ে পড়েছে আরো ১৩টি গরু। মারা যাওয়া ১৩টি গরুর ১১টি ছিল গর্ভবতী।

শনিবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার শেখেরকান্দি গ্রামে হযরত শাহ নবাব ডেইরি ফার্ম লিমিটেডে এ

ঘটনা ঘটে। রোববার সকাল থেকে খামারি বাবুল মিয়া ও তার পরিবারের সদস্যদের আর্তনাতে ভারী হয়ে উঠেছে এলাকার পরিবেশ।

জানা গেছে, নিজের তিন একর জমি বন্ধক রেখে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ১ কোটি ১২ লাখ টাকা ঋণ নেন বাবুল।

এছাড়া আত্মীয় স্বজনদের কাছ থেকেও টাকা ধার নেন। ৭৫টি গরু দিয়ে ২০১৭ সালের ২৫ জানুয়ারি প্রতিষ্ঠিত এ খামার

শুরু করেন। এর মধ্যে বিভিন্ন সময় রোগাক্রান্ত হয়ে ৩৬টি গরু মারা যায় এবং বিক্রি করেন ১৩টি। এবার দুর্বৃত্তদের বিষে সব হারিয়ে নিঃস্ব খামারি বাবুল।

বাবুল মিয়া বলেন, পাঁচ সন্তান ও স্ত্রী নিয়ে এমনিতেই টানাটানির মধ্যে আমার সংসার চলে। এখন আবার নতুন করে

১৩টি গরু মারা গেছে। আরো ১৩টি মারা যাওয়ার মতো। গরুগুলোকে বিষ খাওয়ানো হয়েছে। কে করেছে জানলেও ক্ষতির শঙ্কায় নাম প্রকাশ করতে পারব না। ব্যাংকের ঋণ কীভাবে শোধ করব সেই চিন্তায় আছি।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আলমগীর কবির বলেন, প্রাথমিকভাবে বিষক্রিয়ায় গরুগুলো মারা যাওয়ার বিষয়টিও

নিশ্চিত হওয়া গেছে। ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।বাঞ্ছারামপুর মডেল থানার ওসি রাজু আহমেদ বলেন, বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। দোষীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে।

Check Also

মামুনুল হক আমার বাড়িতে এলে নিজেকে ধন্য মনে করব: নিক্সন চৌধুরী

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক ও তার স’ঙ্গীদের নিজ বাড়িতে দাওয়াত করেছেন ফরিদপুরের …