মাদ্রাসা, মসজিদ বন্ধ হোকঃ তাসলিমা নাসরিন

মাদ্রাসা বন্ধ করে দেওয়া হোক। সর্বত্র আধুনিক ইস্কুল হোক। সভ্য শিক্ষিত সজ্জনকে শিক্ষক পদে নিয়োগ দেওয়া হোক। মসজিদ বন্ধ হোক। যার যার ব্যক্তিগত ইবাদত যার যার ঘরে বসে করবে। মসজিদ মাদ্রাসা এখন দুর্নীতি, দমননীতি, মা’দক ব্যবসা, ধর্ম ব্যবসা, নারী-বিদ্বেষ, যৌ’ন হেনস্থা, ঘৃণা আর হিংসে ছড়ানো, সাম্প্রদায়িকতা, দেশদ্রোহিতা, বর্বরতা, বীভৎসতার জায়গা ছাড়া কিছু নয়।

আমার মিথ্যে বিয়ে দেয়, যার তার সঙ্গে আমাকে শোয়ায়, আমার মিথ্যে ইন্টারভিউ ছাপায়, আমি যা বলিনি তা বলেছি বলে মিথ্যে কোট করে, আমার নাম দিয়ে বই ছাপায়। এসব সেই নব্বই সাল থেকে দেখছি। কেউ বলে মা’মলা করো, ব্যবস্থা নাও। আমার পক্ষে মা’মলা করা, ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব নয়।

একবার, সম্ভবত ৯২ সালে মা’মলা করেছিলাম এক চোরের বি’রুদ্ধে । চোরটি আমার নির্বাচিত কলাম পুরোটা ছাপিয়ে প্রতিটি রচনার তলায় তার এক বা দুলাইনের মন্তব্য ঢুকিয়ে তসলিমা নাসরিনকে উচিত জবাব’ নামে একটি বই ছাপিয়েছিল। মা’মলার খবর ছাপা হওয়ার পর চোরের বইটির বিক্রি ভীষণ বেড়ে গিয়েছিল।

চোরটি ওটিই চেয়েছিল। মাঝখান থেকে আমার একগাদা টাকা খরচা হয়েছিল মা’মলায়, কপিরাইট ল’ঙ্ঘন করার অ’পরাধে ওই লোকের কিচ্ছু হয়নি। এরপর থেকে ক্রিমিনালদের কীর্তিকলাপ দেখি, মন খারাপ হয়, তার পর নিজের কাজে মন দিই। কোভিড ঘরে ঘরে হচ্ছে।

আমারও হতে পারতো। যে কোনও সময়ই অসাবধানে ঘরে ঢুকেও পড়তে পারে ক’রোনা ভাই’রাস। হলে সবার আগে আমিই জানাবো যে আমি করোনা ভাই’রাসে আক্রান্ত। হলে আমি ডাক্তারের কাছে চিকিৎসার জন্য যাবো, কখনও কারও কাছে দোয়া চাইবো না, কারণ আমি দোয়ায় বিশ্বাস করি না।

শুধু বদমাইশি করার জন্য মিথ্যে খবর ছাপানো, শুধু খবর বিক্রি করার জন্য মিথ্যে খবর ছাপানো — এ কিছু অসৎ লোক করবেই। করেই যাবে। বিশেষ করে আমাকে নিয়ে এসব করলে কেউ ওদের চড় থাপড় লাগায় না, তাই নির্ভাবনায়, নিশ্চিন্তে, মহানন্দে করে।

চারদিকে ধর্ষক, না’রীবিদ্বেষী, না’রী হে’নস্থাকারী, দু’র্নীতিবাজ, চোর, গুণ্ডা, খু’নী, মিথ্যুক, স’ন্ত্রাসী, জ’ঙ্গি, প্রতারক, নির্যাতকে গিজগিজ করছে। নিরীহ সরল সোজা কিছু মানুষ যে এখনও যু’দ্ধ করে বেঁচে আছি, এটাই তো অনেক।

Check Also

ঢাকায় সাত সকালে বৃষ্টি, ভোগান্তিতে মানুষ

ঢাকায় মঙ্গলবার সকাল থেকেই মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে। ভোর থেকেই আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিলো। হঠাৎ সাতটার পর …