ভা’রতের বাজারে এলো গরুর গোবর ও গোমূত্র দিয়ে তৈরি রং

ভা’রতে গোবর ও গোমূত্র দিয়ে তৈরি বিভিন্ন দ্রব্যসামগ্রী খবরের শিরোনাম হয়। এবার গরুর বর্জ্য দিয়ে তৈরি রং বাজারে এনেছে দেশটির সরকারি সংস্থা খাদি এবং গ্রামীণ শিল্প কমিশন।

সম্প্রতি দেশটির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গডকরি এর উদ্বোধন করেন। দাবি করা হচ্ছে, গোবর দিয়ে তৈরি এই রংটি ‘পরিবেশ বান্ধব’। এর নাম দেয়া হয়েছে ‘খাদি প্রাকৃতিক রং’। ভা’রতীয় গণমাধ্যম এই সময়ের এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

খাদি প্রাকৃতিক রং স’ম্পর্কে সেখানে বলা হয়েছে, অ্যান্টি-ফাঙ্গাল ও অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্যযু’ক্ত এই রং সম্পূর্ণ পরিবেশ বান্ধব। এতে নেই সীসা, পারদ, ক্রোমিয়াম, আর্সেনিক বা ক্যাডমিয়ামের মতো কোনো বিষাক্ত উপাদান। আর নাম শুনেই বোঝা যায়, রংটি তৈরির প্রধান উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে গোবর।

মূল উপাদান গোবর হলেও বলা হচ্ছে, এই রং সম্পূর্ণ গন্ধহীন। পাশাপাশি এটির উৎপাদন খরচও বাজারের অন্যান্য রংয়ের তুলনায় অনেক কম। আর গুণগত মানের প্রমাণ হিসেবে এই পণ্যটির রয়েছে ব্যুরো অব ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডের (বিআই’এস) সার্টিফিকেট।

রংটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গডকরি জানান, কৃষকদের আয় বাড়ানোর ওপর বিশেষ জো’র দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বিষয়টি মা’থায় রেখে গোবর দিয়ে র‌ং তৈরির চিন্তাভাবনা করছিলেন সংশ্লিষ্টরা। এই পদক্ষেপ দেশটির গ্রামীণ অর্থনীতিকে বেগবান করবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

গোবর দিয়ে তৈরি খাদি প্রাকৃতিক রং পাওয়া যাবে ডিসটেম্পার এবং প্লাস্টিক ই’মালশন এই দুই ধরনে। প্রতি লিটার ডিসটেম্পার রংয়ের দাম পড়বে ১২০ ভা’রতীয় রূপি। আর ই’মালশনের দাম পড়বে প্রতি লিটারে ২২৫ টাকা। খুব শিগগিরই এই রং বাজারে চলে আসবে বলে জানা গেছে।

Check Also

মমতার বাড়ি নেই, গয়নাও ১ ভরির কম

ভা’রতের রাজনীতিতে বিভিন্ন পর্যায়ে দু’র্নী’তিতে আ’ক্রা’ন্ত হয়ে যখন দেশের অনেক নেতা জর্জ’রিত তখন এক ব্যতিক্রমী …