বিরল দৃষ্টান্ত- একই সঙ্গে মা-মে’য়ের বিয়ে!

একই দিনে মা-মে’য়ের বিয়ে। তাও আবার একই মণ্ডপে! হয় নাকি! লোকজন তো তাই বলছে, এদেশে হয়তো এর আগে এমন কা’ণ্ড ঘটেনি। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের শহর বলে জনপ্রিয় গোরখপুর। সেখানেই ঘটল এই আজব কা’ণ্ড! একই মণ্ডপে মা ও মে’য়ের বিয়ে হল। অ’বাক হলেও ঘটনাটি একেবারে সত্যি। মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে গণবিবাহের আয়োজন হয়েছিল। সেখানেই মা ও মে’য়ের বিয়ে হল। পিপরেলি ব্লকের বেইলি নামের এক মহিলা তাঁর দেওর জগদীশকে বিয়ে করেছেন। জগদীশের বয়স ৫৫। বেইলির ৫৩।

মে’য়ে ইন্দুর বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু একই মঞ্চে তাঁর মা ও কাকাও বিয়ে সেরে ফেলবেন বলে ঠিক করেন। বেইলির দুই মে’য়ে ও দুই ছেল। ২৫ বছর আগে তাঁর স্বামী মা’রা যান। তার পর থেকে সন্তানদের মানুষ করেন তিনি। এদিকে, জগদীশ বিয়ে করেননি। দুজনের মধ্যে যে অনেক আগে থেকে স’ম্পর্ক ছিল তাও নয়। তবে গত কয়েক বছরে পরিস্থিতি বদলায়। বউদিকে বিয়ে করবেন বলে ঠিক করেন জগদীশ। প্রথমে চার সন্তানের মা রাজি হননি। কিন্তু এর পর তিনিও জগদীশের প্রস্তাবে সায় দেন। ঠিক হয়, একই দিনে, একই মঞ্চে মা ও মে’য়ের বিয়ে হবে।

আরও পড়ুন- কলেজছা’ত্রীকে দিনে-দুপুরে গু’লি! উল্টে পু’লিসকে দোষী বানিয়ে দিল মু’সলিম যুবক

এদিন গণবিবাহের অনুষ্ঠান জে’লা’শাসক, এসপি থেকে শুরু করে একাধিক প্রশাসনিক ক’র্তা হাজির ছিলেন। তবে মা ও মে’য়ের বিয়ে নিয়েই যেন সবার মধ্যে আলাদা উত্সাহ ছিল। পেশায় কৃষক জগদীশ নিজের সিদ্ধান্তে গর্বিত ও খুশি। বড় ভাই হরিহর মা’রা যাওয়ার পর বউদির সঙ্গে মিলে পরিবারের দেখভাল করেছিলেন জগদীশ। ভাইদের মধ্যে তিনিই ছিলেন সব থেকে ছোট।

Check Also

বাস স্ট্যান্ডের পাশে পড়েছিল বস্তাভর্তি টাকা

নাটোরের বড়াইগ্রামে বনপাড়া বাজারে পাবনা বাস স্ট্যান্ডের পাশে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি টাকার বস্তা পাওয়া গেছে। …