বাড়ি না বানিয়ে নিজের জমিতে হাসপাতাল নির্মাণ করছেন ইলিয়াস কাঞ্চন

১৯৯৩ সালের ২২ অক্টোবর এক সড়ক দুর্ঘ’টনায় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের স্ত্রী’’ মা’রা যান। পরে ওই বছর ২৭ নভেম্বর সংবাদ সম্মেলন করে ’নিরাপদ সড়ক চাই’ নামে একটি সংগঠন গঠন করেন।

সেই থেকে চলচ্চিত্রের পাশাপাশি সমাজসেবা করছেন জনপ্রিয় এই চিত্রনায়ক। সমাজসেবায় অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে পেয়েছেন একুশে পদক।

নান্দনিক বাড়ি না বানিয়ে এই জমিতে হাসপাতাল বানানোর ঘোষণা দিয়েছেন ইলিয়াস কাঞ্চন। যেখানে সেবা দেওয়া হবে মানুষকে।

এরই মধ্যে নামও চূড়ান্ত করে ফেলেছেন। তাঁর প্রয়াত স্ত্রী’’র নামে এটির নাম হবে ’জাহানারা কাঞ্চন মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতাল’।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, আশুলিয়াতে হাসপাতাল করতে যাচ্ছি। আমা’র একটি মাত্র জমি, সেখানে আমি হাসপাতাল করবো।

আমা’র যা আছে তাই দিয়েই হাসপাতা’লের কাজ শুরু হয়েছে। এর মধ্যেই ৬ তলার প্ল্যান পাশ হয়েছে।জেনারেল হাসপাতাল হলেও এখানে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হবে

সড়ক দুর্ঘ’টনায় আ’হত মানুষদের।’ অনেক সহযোগিতা করেছেন ইঞ্জিনিয়ার স্বপন ভাই। আমি আমা’র স্বপ্ন পূরণ করে চলেছি।

যতদিন বেঁচে থাকবো মানুষের সেবা করে যাবো। এটাই আমা’র স্বপ্ন ও কাজ।তিনি আরো জানান, ২০০০ সালে নিজ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে সর্বশেষ চলচ্চিত্র

’মুন্না মাস্তান’ মুক্তি দেন তিনি। সেই ছবি থেকে যে আয় হয় তা দিয়ে হাসপাতা’লের জমিটি কিনে রেখেছিলেন।

১৯৭৭ সালে বসুন্ধ’রা চলচ্চিত্রের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অ’ভিনয় শুরু করেন ইলিয়াস কাঞ্চন। চলচ্চিত্র অ’ভিনেতা ছাড়াও তার দুটি পরিচয় হল চলচ্চিত্র প্রযোজক এবং চলচ্চিত্র পরিচালক।

মাটির কসম সিনেমা’র মাধ্যমে চলচ্চিত্র প্রযোজনা এবং বাবা আমা’র বাবা চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তিনি চলচ্চিত্র পরিচালনা শুরু করেন।

তিনি মায়ের স্বপ্ন নামেও একটি চলচ্চিত্র পরিচালনা করেন। ইলিয়াস কাঞ্চনের প্রযোজনা সংস্থার নাম জয় চলচ্চিত্র।

প্রাইভেট প্লেনে চড়ে চুল কা’টাতে যান সুলতান বোলখিয়া

এশিয়ার ছোট একটি দেশ ব্রুনেই। দেশটির রাজা সুলতান হাসানাল বোলখিয়া। তিনিই দেশটির সর্বেসর্ব্বা অধিপতি।

বর্তমানে দেশটিতে কঠোর শরিয়াহ আইন প্রবর্তন করা হয়েছে। ওই আইনের ভ’য়ে দেশটিতে মানুষেরা আতঙ্কে রয়েছে। সবচেয়ে বেশি আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েছে সমকামিরা।

তারা দলে দলে দেশ ছাড়ছে।সুলতান হাসানাল বোলখিয়া ব্রুনেইর সকল ক্ষমতার একচ্ছত্র অধিপতি। তিনিই দেশটির সর্বোচ্চ ইস’লামিক নেতা।

একাধারে তিনি দেশটির প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, পররাষ্ট্র ও বানিজ্যমন্ত্রী। শুধু তাই নয়, সুলতান হাসানাল বোলখিয়া ব্রুনাইয়ের সুপারিন্টেন্ডেন্ট অব পু’লিশ,

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এবং কমান্ডার অব দ্য আর্মড ফোর্সেস। এমনকি ব্রুনেইর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরও তিনি।

ব্রুনেইর সুলতানের ব্যক্তিগত সম্পদের পরিমাণ ২৭ দশমিক ৭ বিলিয়ন ডলার। বিশ্বের সবচেয়ে সম্পদশালী শাসকদের একজন তিনি।র ।

Check Also

বাড়ি তৈরির কাজ প্রসঙ্গে সংবাদে বিব্রত সানাই

‘আমার বাবা একটি বেসরকারি ব্যাংকের সাবেক উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম)। তার নিজস্ব অর্থায়নে রংপুরে আমাদের পৈতৃক সম্পত্তিতে …