প্রতিযোগীর সেক্সি ফিগারে মুগ্ধ নেহা ধুপিয়া, বডি দেখে জিভে জল অভিনেত্রীর, ভাইরাল ভিডিও

বলিউড অভিনেত্রীদের তালিকায় জনপ্রিয় নেহা ধুপিয়া (Neha dhupiya)। তিনি একজন ভারতীয় হিন্দি চলচ্চিত্র অভিনেত্রী এবং ‘মিস ইন্ডিয়া’।

মূলত হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্রে কাজ করলেও নেহা কিছু তেলেগু এবং মালায়ালাম ভাষার চলচ্চিত্রেও কাজ করেছেন এবং তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ছিল মালায়ালাম ভাষারই। নেহা ১৯৮০ সালে কোচিতে একটি শিখ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা প্রদীপ সিং ধুপিয়া নৌবাহিনীতে ‘কমান্ডার’ পদমর্যাদার কর্মকর্তা ছিলেন আর মাতা মানপিন্দার বাবলী গৃহিণী ছিলেন।

২০০২ সালে নেহা ‘মিস ইন্ডিয়া’ সুন্দরী প্রতিযোগিতায় জয়ী হলে তার বলিউডে ডাক পড়ে তাঁর, ‘কায়ামাত সিটি আন্ডার থ্রেট’ (২০০৩) চলচ্চিত্রে তিনি কাজ করার সুযোগ পান। নেহা অভিনীত ২০০৫ সালে মুক্তি পাওয়া হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র ‘ক্যায়া কুল হে হাম’ বাণিজ্যিকভাবে সফল হয়েছিল এবং ‘শুটআউট লোখান্ডওয়ালা’ (২০০৭) জনপ্রিয়তাসহ ব্যবসায়ীক সফলও হয়েছিল, একই বছর মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র ‘দাছ কাহানিয়া’তেও নেহা ভালো অভিনয় করেছিলেন।

কিছু সিনেমায় তিনি বাণিজ্যিক সফলতা পেলেও বেশ কিছু ছবিতে তিনি বিশেষ নাম করতে পারেননি। তার পরেই তিনি বড় পর্দা থেকে বিদায় নেন। ২০১৮ সালের মে মাসে দিল্লিতে চুপিসারে বিয়ে করে নেন নেহা তাঁর পূর্বপরিচিত বন্ধু অঙ্গদ বেদির সঙ্গে। বিয়ের বছরের নভেম্বর মাসেই তাদের ঘরে এক কন্যা সন্তান আসে। অবশ্য নেহা যখন বিয়ে করেন তখন সে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

অভিনয়ের বাইরে তাঁর অসাধারণ ব্যক্তিত্বও সকলের নজর কাড়ে। নারীবাদী হিসেবেও বরাবর মুখ খুলেছেন নেহা। বরাবরের মতো এমটিভি রোডিজ-এও বিচারকের ভূমিকায় থাকেন তিনি। বিভিন্ন সময়ে তিনি এই শো এর কিচ্ছু ব্যবহারের জন্য ট্রোলিংয়ের শিকার হন। এবারও তাই হল। রোডিজের সামান্য এক প্রতিযোগীকে দেখে নিজেকে সামলাতে পারলেন না নেহা। তিনি ছিলেন এক পুরুষ প্রতিযোগী যিনি কিনা একাধারে রোডিজের প্রতিযোগী ও দিল্লীর পুলিশ অফিসারও ছিলেন, এই শোয়ে অংশগ্রহণ করেন তিনি।

সেখানে আচমকা নেহা তাঁকে দেখে শার্ট খুলতে বললেন। তিনিই খুললেন। ব্যাস শার্ট খোলার সঙ্গে সঙ্গেই নেহার সেই এক্সপ্রেশন দেখার মত ছিল। বোল্ড এক্সপ্রেশন যাকে বলে। একদম হাঁ হয়ে গেলেন। সিক্স প্যাক, শক্ত পেশী, উন্নত বুক, সেক্সি কাঠামো দেখে প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন তিনি সেই সময় পুলিশ অফিসারের। সেই প্রতিযোগীর সঙ্গে একটু কোমর দুলিয়েও ছিলেন। সেই ভিডিও মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরালও হয়েছিল।

Check Also

বাড়ি তৈরির কাজ প্রসঙ্গে সংবাদে বিব্রত সানাই

‘আমার বাবা একটি বেসরকারি ব্যাংকের সাবেক উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম)। তার নিজস্ব অর্থায়নে রংপুরে আমাদের পৈতৃক সম্পত্তিতে …