পেটে গ্যাস কমাতে ও বদহজম দূর করতে পান করুন জিরা পানি

কোরবানির ঈদে খাওয়ার পরিমানটা এমনিতেই বেড়ে যায়। আর বদহজম এবং পেটে গ্যাস জমে। এমন অবস্থা যদি আপনারও হয়ে থাকে, তাহলে ভূড়ি ভোজের পর পান করুন জিরা পানি। জিরাতে থাকা একাধিক উপকারি উপাদান হজম শক্তির উন্নতি ঘটানোসহ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। জেনে নিন জিরা পানি তৈরির রেসিপি।

উপকরণ-

১। ১৫০ মিলিলিটার বিশুদ্ধ পানি, ২। পুদিনা পাতা স্বাদ ও ঘ্রাণ মতো, ৩। ১ কাপ তেঁতুল ভেজানো পানি, ৪। ২ টেবিল চামচ চিনি, ৫। ১ চা চামচ বিট লবণ

৬। ১ টেবিল চামচ ভাজা জিরে গুঁড়া, ৭। ১ লেবুর রস, ৮। ২ চা চামচ মধু্‌, ৯। ১ টা কাঁচা মরিচ কুচি, ১০। প্রয়োজন অনুযায়ী বরফের টুকরো।

প্রণালি-

প্রথমে তেঁতুল গুলিয়ে নিন। কাঁচা মরিচ ও পুদিনা পাতা বেটে পেস্ট করে নিন। একটি পাত্রে বিশুদ্ধ পানি নিয়ে তাতে সব উপকরণ ভালো ভাবে মেশান। বরফ দিয়ে পরিবেশন করুন।

সকালের যেসব অভ্যাসের কারণে আপনার ওজন বাড়ছে

ওজন বৃদ্ধি পাওয়া বেশিরভাগ মানুষেরই প্রধান স্বাস্থ্য সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। ওজন বৃদ্ধি নিয়ে অনেকের খুব বেশি চিন্তা থাকলেও এটি কেন বাড়ছে বা ওজন কমানোর কার্যকরী চেষ্টা করার লোকের সংখ্যা খুব বেশি নয়।

সকালের কয়েকটি অভ্যাসের কারণে ওজন বাড়ার প্রক্রিয়া আরও দ্রুত হয়। চলুন তেমন কয়েকটি অভ্যাস সম্পর্কে জেনে আরও সতর্ক হই।

বেশি ঘুম-

আগের চেয়ে আপনার ওজন বাড়ছে। এ নিয়ে চিন্তিত কিন্তু সকালের বাড়তি ঘুম থেকে বিরত হন না, তাহলে এতে খুব বেশি লাভ হবে না। কারণ সকালের বাড়তি ঘুম শরীরের ওজন বাড়িয়ে দিতে পারে। তবে রাতে সাধারণত সাত ঘণ্টার কম ঘুমানো উচিত নয়।

সকালের নাস্তা না খাওয়া-

কেউ যাই বলুক না কেন সকালের নাস্তা বাদ দেয়া উচিত নয়। সকালে খাবার না খাওয়া আপনার বিপাককে প্রভাবিত করে এবং দেহের অভ্যন্তরীণ ঘড়িকে ব্যাহত করতে পারে। এটির কারণে ওজন বাড়ার উচ্চতর সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া সকালের নাস্তা না খেলে সারাদিন হতাশা ও অলসতা দেখা দিতে পারে।

মেডিটেশন না করা-

ভোরের মেডিটেশন শরীরের জন্য অত্যন্ত কার্যকরী। এটি ওজন কমাতে অত্যন্ত সাহায্য করে। মেডিটেশন করটিসোল নামক স্ট্রেস-প্ররোচিত হরমোন হ্রাস করতে সহায়তা করে।

আর এটি না করলে ওজন বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সকালের মেডিটেশন সারাদিনকে আরও আনন্দময় করে তুলতে পারে।

পর্যাপ্ত পানি পান না করা-

এক গ্লাস পানি দিয়ে দিনের যাত্রা শুরু করা উচিত। সকালে ঘুম থেকে উঠে এক গ্লাস পানি খাওয়া একটি আদর্শ অভ্যাস। এটি ওজন কমাতে সাহায্য করতে পারে। এছাড়া সারাদিনেও পরিমাণ মতো পানি পান করতে হবে। পানির ঘাটতি শরীরে অনেক সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে, সেগুলোর কারণে ওজন বেড়ে যেতে পারে।

Check Also

বিনা খরচে আজীবনের জন্য এলার্জিকে বিদায় জানান

মানবজীবনে এলার্জি কতোটা ভয়ঙ্কর তা যিনি ভুক্তভোগী শুধু তিনিই জানেন। এর উপশমের জন্য কতোজন কতো …