দেশে ফিরলেন দীঘি

নায়িকা হিসেবে একসময়ের জনপ্রিয় শিশুশিল্পী দিঘীর অভিষেক হয়েছে গত বছর। এখন নায়িকা হয়েই সিনেমায় অভিনয় করেছেন।

ইতোমধ্যে শামীম আহমেদ রনির পরিচালনায় ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ সিনেমার কাজ শেষ করেছেন। বাংলাদেশ ও ভারত সরকারের প্রযোজনা নির্মিত হচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু’ বায়োপিক। মুম্বাইয়ের দাদা সাহেব ফালকে স্টুডিওতে চলছে চিত্রায়ণ। শ্যাম বেনেগাল পরিচালিত এ বায়োপিকে ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের কিশোরী বেলার চরিত্রে অভিনয় করছেন প্রার্থনা ফারদিন দীঘি।

চিত্রায়ণে অংশ নিতে গত ২২ জানুয়ারি মুম্বাই গিয়েছিলেন তিনি। নিজের অংশের চিত্রায়ণ শেষে ২ ফেব্রুয়ারি দেশে ফিরেছেন এ অভিনেত্রী। আলাপকালে দীঘি জানান, মার্চের শেষের দিকে আবারও মুম্বাই যাওয়ার কথা রয়েছে তার। তখনই শেষ হবে দীঘির চিত্রায়ণ।

বায়োপিকে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল? জানতে চাইলে এ অভিনেত্রী বলেন, অভিজ্ঞতা অন্যরকম। পুরো টিম খুব অ্যাকটিভ। এমন একটা টিমের সঙ্গে কাজ করতে পেরে সত্যি আনন্দিত। আমার অভিজ্ঞতার ঝুলিতে অনেককিছু যুক্ত হয়েছে।

প্রখ্যাত নির্মাতা শ্যাম বেনেগালের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা জানিয়ে দীঘি বলেন, শ্যাম বেনেগাল স্যারের সঙ্গে কাজ করা আমার জন্য সত্যিই আশীর্বাদের বিষয়। আমার চরিত্রটি নিয়ে প্রথম একটু ভয়ের মধ্যে ছিলাম। স্যার সব বুঝিয়ে দেওয়ার পর ভয় কেটে যায়। কিছুটা ভয় নিয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছিলাম।

টিমের সবার সহযোগিতায় পরে সব ঠিক হয়ে গেছে। ‘বঙ্গবন্ধু’ বায়োপিকে ন্যাচারাল লুকে অভিনয় করেছেন দীঘি। কোনো মেকআপ ছিল না তার জানিয়ে শিশু শিল্পী থেকে নায়িকা বনে যাওয়া এ অভিনেত্রী বলেন, প্রথমে একটু টেনশনে ছিলাম, ন্যাচারাল লুকে ভালো লাগবে কি না তা নিয়ে। কিন্তু পরে যখন ফুটেজ দেখলাম তখন অনেক শান্তি পেলাম। মেকআপ ছাড়া আমাকে এতো ভালো লাগে সেটা প্রথম জানলাম।

ইতিহাসের অংশ হতে পেরে বেশ উচ্ছ্বসিত দীঘি। জাতির জনককে নিয়ে নির্মিত সিনেমায় সুযোগ পাওয়া দীঘির জীবনের সেরা প্রাপ্তি। আলাপকালে এমনটাও জানিয়েছেন জনপ্রিয় এ অভিনেত্রী। উল্লেখ্য, দিঘী শিশুশিল্পী হিসেবে তিন বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। চাচ্চু, দাদী মাসহ অনেক সিনেমায় শিশুশিল্পী হিসেবে তিনি অভিনয় করেন। একটানা ৩৬ টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি।

Check Also

বাড়ি তৈরির কাজ প্রসঙ্গে সংবাদে বিব্রত সানাই

‘আমার বাবা একটি বেসরকারি ব্যাংকের সাবেক উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম)। তার নিজস্ব অর্থায়নে রংপুরে আমাদের পৈতৃক সম্পত্তিতে …