তিন চোখ মাথায় তিনটি শিং, রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে বিরল ষাঁড়, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

বর্তমান যুগে টেলিভিশনের থেকেও বেশি জনপ্রিয় এবং বিনোদনের জায়গা হল সোশ্যাল মিডিয়া। এই সোশ্যাল মিডিয়ার ভাইরাল হওয়া ভিডিওগু’লি এখন মানুষের কাছে বিনোদনের অন্যতম প্রধান মাধ্যম। নিজেদের ব্যস্ত সময়ের মাঝেই আমাদের একঘেয়ে জীবনের প্রতি তখন যেনো চলে আসে বিতৃষ্ণা, তাই সেখান থেকে বেরোনোর জন্য জীবনকে তখন দিতে ইচ্ছে করে কিছুটা ভিন্ন স্বাদের আশ্বা’স। তাই সেই মনোরঞ্জন এবং সাময়িক বিনোদনের জন্য আমাদের সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্য নিতে হয়। কখনো কখনো এইসব ভিডিও নির্মল আনন্দের জন্য তৈরি হয়।

আ’সলে বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে কিছুই অস্বা’ভাবিক নয়। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে আম’রা এখন অনেক এমন কিছু দে’খতে পাই, যা দেখে নিজে’র চোখকে বিশ্বা’স করা যায়না যে সত্যি আম’রা কি দেখলাম! যা দেখলাম ঠিক দেখলাম তো! কি মানুষ হোক কি পশু হোক! যদিও ইন্টারনেটে মাঝে মাঝে কিছু মজাদার ভিডিও বা প্রতিভার ভিডিও বা কোন হাস্যকর মিউজিক ভিডিও ভাইরাল হয়ে থাকে। হাসি-কান্না, রাগ-অভিমান সবকিছু আম’রা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তুলে ধ’রতে পারি।

তবে স’ম্প্রতি একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে রাস্তাঘাটে ঘুরে বেড়াচ্ছে তিনটে শিং এবং তিনটে চোখ ওয়ালা একটি ষাঁড়। অবশ্য রাস্তাঘাটে ষাঁড়, গরু খুব সহজেই দে’খতে পাওয়া যায়। গৃহ পালিত পশু হিসেবে ভারতের অনেক জায়গাতেই গোমাতাকে পুজোও করা হয়। এমন অদ্ভুত ষাঁড় বাবাজিকে দেখে রাস্তাঘাটে ছবি তোলার জন্য রীতিমতো হুড়োহুড়ি পড়ে গিয়েছিল, হবে নাই বা কেন এরকম বিরল ঘ’টনা যে খুব একটা দেখা যায়না। তাই মুহূ’র্তে ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।

পশুর তিনটি চোখ আর তিনটি শিং সত্যি সহজে দেখা যায় না। যদিও জ’ন্মের সময় সকলে যে সমানভাবে জ’ন্মাবে এমনটা কিন্তু নয়। যেমন মায়ের গর্ভে থাকাকালীন নানান রকম স’মস্যার জন্য অনেক অদ্ভুত রকমের মানুষের সৃষ্টি হয়, তেমনি পশুদের গর্ভেও এমনটা হয়। তবে যেভাবেই হোক না কেন এমন সৃষ্টিকে দেখে মানুষের কৌতূহলের শেষ নেই।

Check Also

হিজড়াদের কখনোই তিনটি জিনিস দেবেন না, দিলে আপনার সর্বনাশ হবেই

শহরের ব্যাস্ত সময় রাস্তা ঘাটে, বাসে ট্রেনে, ভিড়ের মাঝে তাদের দেখা যায়। তারা রঙিন মুখে …