জামিন পেলেন হাজী সেলিমপুত্র ইরফান

সংসদ সদস্য (এমপি) হাজী সেলিমের ছে’লে ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের (বরখাস্ত) কাউন্সিলর ইরফান সেলিমকে ভ্রাম্যমাণ আ’দালতে সাজা দেওয়া দুই মা’মলায় জামিন দিয়েছেন আ’দালত।

ঢাকার অ’তিরিক্ত জে’লা ম্যাজিস্ট্রেট প্রতি মঙ্গলবার হাজিরা দেয়ার শর্তে তার জামিন মঞ্জুর করেন। মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) ইরফান সেলিমের আইনজীবী শ্রী প্রা’ণনাথ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‌ইরফান সেলিমকে রেবের ভ্রাম্যমাণ আ’দালতের দেয়া সাজার বি’রুদ্ধে ঢাকার অ’তিরিক্ত জে’লা ম্যাজিস্ট্রেট আ’দালতে আপিল করা হয়। শুনানি শেষে ৫০ হাজার টাকা মুচলেকায় আ’দালত এই জামিন আদেশ দেন।

২০২০ সালের ২৬ অক্টোবর ইরফান সেলিমকে অ’বৈধ ওয়াকিট’কি রাখার দায়ে ছয় মাস ও বিদেশি মা’দক রাখার দায়ে এক বছরের কারাদ’ণ্ড দেন র‌্যা’­বের ভ্রাম্যমাণ আ’দালত।

২৫ অক্টোবর রাতে এমপি হাজী মোহাম্ম’দ সেলিমের ‘সংসদ সদস্য’ লেখা সরকারি গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর কর্মক’র্তা ওয়াসিফ আহমেদ খানকে মা’রধর করা হয়। রাজধানীর কলাবাগান সিগন্যালের পাশে এ ঘটনা ঘটে। পরের দিন হাজী সেলিমের ছে’লেসহ সাতজনের বি’রুদ্ধে ধানমন্ডি থা’নায় মা’মলা করা হয়।

মা’মলার এজাহারে বলা হয়, ‘ইরফানের গাড়ি ওয়াসিফকে ধাক্কা মা’রার পর তিনি সড়কের পাশে মোটরসাইকেলটি থামিয়ে গাড়ির সামনে দাঁড়ান এবং নিজের পরিচয় দেন। তখন গাড়ি থেকে আ’সামিরা একসঙ্গে বলতে থাকেন, ‘তোর নৌবাহিনী/সে’নাবাহিনী বের করতেছি, তোর লেফটেন্যান্ট/ক্যাপ্টেন বের করতেছি। তোকে এখনি মে’রে ফেলব’ বলে কিল-ঘুষি মা’রেন এবং আমা’র স্ত্রী’কে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন।’

মা’মলায় মোট পাঁচটি ফৌজদারি অ’প’রাধের ধারার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। অ’প’রাধগুলো হলো- দ’ণ্ডবিধি ১৪৩ অনুযায়ী বেআইনি সমাবেশের সদস্য হয়ে কোনো ব্যক্তির বি’রুদ্ধে অ’প’রাধমূলকভাবে বল প্রয়োগ করা, ৩৪১ অনুযায়ী কোনো ব্যক্তিকে অ’বৈধভাবে নিয়ন্ত্রণ করা, ৩৩২ ধারা অনুযায়ী সরকারি কর্মক’র্তার কাজে বাধাদানের উদ্দেশ্যে আ’হত করা, ৩৫৩ ধারা অনুযায়ী সরকারি কর্মক’র্তার ওপর বল প্রয়োগ করা এবং ৫০৬ ধারায় প্রা’ণনাশের হু’মকি দেয়ার।

Check Also

ঢাকায় সাত সকালে বৃষ্টি, ভোগান্তিতে মানুষ

ঢাকায় মঙ্গলবার সকাল থেকেই মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে। ভোর থেকেই আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিলো। হঠাৎ সাতটার পর …