এই পেঁচারা নিজ ঘর ও সন্তান দে’খভালের জন্য পো’ষে সা’প!

সা’প আর পো’কামাকড় খে’য়েই জী’বনধারণ করে পেঁচারা। তবে অ’বাক করা বিষয় হলো, এক প্র’জাতির পেঁচা রয়েছে, যারা কিনা নিজে’র বাড়ি আর সন্তানদের পা’হারা দিতে বাসায় সা’প পু’ষে। কথায় বলে ট্রুথ ইজ স্ট্রে’ঞ্জার দ্যান ফি’কশন।

ঠিক তে’মনভাবেই এই প্র’জাতির পেঁচারা স’ত্যি স’ত্যিই বাসা এবং সন্তানদের পা’হারা দিতে সা’প পো’ষে বাসায়। অ’দ্ভুত এই পেঁচার প্র’জাতিটির নাম স্ক্রিচ আ’উল বা স্ক্রি’চ পেঁচা। প্র’জনন মৌ’সুমে, প্রা’প্তবয়স্ক স্ক্রি’চ পেঁচারা তাদের ছা’নাদের জন্য খাবার নিয়ে আ’সে এবং কখনো কখনো এই খাবারগুলোতে থাকে টে’ক্সাস ব্লা’ইন্ড স্নে’ক। তবে স্বা’স্তির বিষয় হলো এই সা’পেরা অ’ন্ধ হয়।

টে’ক্সাস ব্লা’ইন্ড স্নে’ক এক ধ’রনের ছোট সা’প যা দে’খতে অনেকটা বড় বড় কেঁ’চো’র মতো। মূ’লত টে’ক্সাস অ’ঞ্চলের বা’সিন্দা এই প্র’জাতির সা’পগুলো অ’ন্ধ হয়। এই সা’পগুলো পেঁচার বা’সায় থেকে পো’কামাকড় ও লা’র্ভা খা’য়। তা না হলে পেঁচার বা’সা দ্রু’ত লা’র্ভায় ভ’রে যে’তে পারে। যা পেঁচার ছা’নাদের জন্য ক্ষ’তিকারক। এই সা’পেদের জন্য বাসা প’রিষ্কার থাকলে ছা’নাগুলো দ্রু’ত বড় হয়। কারণ পো’ষা এই অ’ন্ধ সা’প পেঁচার বাসা কী’ট-পত’ঙ্গ মু’ক্ত রাখে।

১৯৭৫ সালে বায়লর বি’শ্ববিদ্যালয়ে দুই জী’ববিজ্ঞানী এফআর গে’লবাক ও আরএস বা’লরিজ ল’ক্ষ্য করেন টেক্সাস অ’ঞ্চলের কিছু স্ক্রি’চ পেঁচা তাদের বাসা ভা’গ করে নি’চ্ছে সা’পেদের স’ঙ্গে। যা একেবারেই অ’বিশ্বা’স্য ছিল। জী’ববিজ্ঞানীরা এই বিষয়টি বি’শদে পরী’ক্ষা করেন।

তাদের মতে, অব’শ্যই পেঁ’চারা সা’পগুলোকে বাসাতে নিয়ে গি’য়েছিল তবে তাদের নিয়ে যাওয়ার প’দ্ধতি আ’লাদা ছিল বেশিরভাগ শি’কারী পাখির মতো। স্ক্রি’চ পেঁচা তাদের শি’কার বাসায় আ’নার সময় সা’ধারণত শি’কারকে মে’রে ফে’লে। তবে এই অন্ধ সা’পগুলোর ক্ষে’ত্রে এমনটা করে না। এমনভাবেই তাদের নিয়ে আসে যাতে সা’পগুলো মা’রা না যায়।

গে’লবাক ও বালরিজ ৭৭ টি পেঁচার বাসা পরীক্ষা ক’রেছিলেন। যার মধ্যে ১৪ টি বাসায় (প্রায় ১৮ শতাংশ) ব্লা’ইন্ড স্নে’ক ছিল। বেশিরভাগ বাসায় অব’শ্য মাত্র একটি করেই সা’প ছিল। তবে একটি বাসায় প্রায় ১৫টি সা’প পাওয়া গি’য়েছিল। পেঁচার বাসায় থাকা ৮৯ শতাংশ সাপ জী’বিত ছিল। মোট ৩৫ টি সা’পের মধ্যে ৪ টি সা’প মা’রা গি’য়েছিল।

Check Also

ধেয়ে আসছে বিশালাকার গ্রহাণু

একটি বিশালাকার গ্রহাণু ধেয়ে আসছে পৃথিবীর দিকে। আন্তর্জাতিক মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা জানিয়েছে, এটি পৃথিবীর …