এইচএসসিতে অটোপাস করা শিক্ষার্থীরা পেলো বড় দু:সংবাদ!

ক’রোনার কারণে ২০২০ সালের এইচএসসি প’রীক্ষা বা’তিল করা হয়েছে। স’ব প’রীক্ষার্থীকে অটোপাস ঘোষণা করেছে শি’ক্ষা ম’ন্ত্রণালয়। জেএসসি ও এসএসসি প’রীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ও’প’র এবারের এইচএসসির ফল তৈরি করা হবে। এ দুই প’রীক্ষায় যাদের স’ব বি’ষয়ে স’র্বোচ্চ নম্বর

রয়েছে তারা জিপিএ-৫ পাবে। তবে আ’গের দুই প’রীক্ষায় অ’তিরিক্ত ও ব্যবহা’রিক বি’ষয়ে বেশি নম্বর পেয়ে জিপিএ-৫ পেলেও এইচএসসিতে মোট নম্বরের ও’প’র জিপিএ কমে যেতে পারে। এসএসসির ফল ৭৫ শতাংশ ও জেএসসির ২৫ শতাংশ গু’রুত্ব দিয়ে উ’চ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ করা হবে চলতি মা’সে।

তবে ইংলিশ মিডিয়ামের শি’ক্ষার্থীদের জ’ন্য আন্তর্জাতিক নম্বরকে জিপিএতে রূপান্তর ও বাংলাদেশ উন্মুক্ত বি’শ্ববিদ্যালয়ের (বা’উবি) শি’ক্ষার্থীদের এসএসসির ফলের ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ নম্বর এইচএসসিতে দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। আ’গের দুই প’রীক্ষায় অ’তিরিক্ত ও ব্যবহা’রিক বি’ষয় একইভাবে নম্বর মূল্যায়ন করে নম্বর যু’ক্ত করা হবে।

স’ম্প্র’তি শি’ক্ষা ম’ন্ত্রণালয়ে এ প্রস্তাব পাঠিয়েছে এইচএসসি প’রীক্ষার অটোপাসের নম্বর মূল্যায়ন ক’মিটি। চলতি সপ্তাহে এটি অ’নুমোদন দিয়ে শি’ক্ষা বোর্ডগুলোতে পাঠালে ফল তৈরির কাজ শুরু করা হবে ব’লে জা’না গেছে।

জেএসসি ও এসএসসি প’রীক্ষার প্রাপ্ত নম্বর মূল্যায়ন করে এ প’রীক্ষার ফল তৈরি করা হবে ব’লে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এ জ’ন্য শি’ক্ষা ম’ন্ত্রণালয়ের একজ’ন অ’তিরিক্ত স’চিবকে আ’হ্বায়ক করে আট সদস্যের একটি ক’মিটি গঠন করা হয়। তারা গত দুই সপ্তাহ আ’গে এ-সং’ক্রান্ত দিকনি’র্দেশনামূলক একটি প্রস্তাব জমা দিয়েছেন।

জা’না গেছে, আ’গের প’রীক্ষার ফলের চেয়ে এইচএসসি প’রীক্ষায় কিছুটা নম্বর কম পেয়ে থাকে শি’ক্ষার্থীরা। এ স্তরে প্রা’য় ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ প’রীক্ষার্থী ফেল করে। আর ফল বাড়লে সেটা কী’’ প’রিমাণ বাড়ে তা খতিয়ে দেখতে দুই লক্ষাধিক প’রীক্ষার উত্তরপত্র নিরীক্ষা করা হয়েছে। তার মধ্যে গত বছরের ৯০ শতাংশ ও বিগত অন্যান্য বছরের ১০ শতাংশ উত্তরপত্র ছিল।

তাদের মধ্যে শহর-গ্রা’মের ভা’লো ও পিছিয়ে পড়া শি’ক্ষাপ্র’তিষ্ঠানের শি’ক্ষার্থীরা এইচএসসি প’রীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। নিরীক্ষায় দেখা গেছে, স’র্বশেষ যে প’রীক্ষায় অংশ নিয়েছে তার প্রশ্ন-উত্তরের অনেক কিছু শি’ক্ষার্থীদের মনে থাকে।

আর জেএসসি অনেক আ’গে শেষ হওয়ায় সেস’ব বি’ষয় ভু’লে যায় ব’লে এসএসসি-স’মমা’নে ৭৫ শতাংশ আর জেএসসি-জেডিসিতে ২৫ শতাংশ নম্বর মূল্যায়ন নীতিকে বেছে নেওয়া হয়েছে। তবে জেএসসি এবং এসএসসিতে কো’নো বি’ষয়ে ভিন্নতা থাক’লে সেটি বি’জ্ঞান, বাণিজ্য নাকি মা’নবিক বিভাগের অ’ন্তর্ভু’ক্ত সেটি দেখা হবে।

বি’ষয়টি নিয়ে টেকনিক্যাল ক’মিটির সদস্য ঢাকা বি’শ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্সে বিভাগের অধ্যাপক ড. মো’স্তাফিজুর রহমা’ন ব’লেন, প’রীক্ষা ছা’ড়া সাবজেক্ট ম্যাপ ও বিন্যাস অ’নুকরণ জ’টিল বি’ষয়। এ বি’ষয়ে দিকনি’র্দেশনা দেওয়াটা আরো জ’টিল। তবে কাজ শুরুর প’র সেটি আর জ’টিল মনে হয়নি।

নম্বর ও প’রিসংখ্যানের ও’প’র ভিত্তি করে বি’জ্ঞানস’ম্মত প’দ্ধতিতে এইচএসসি প’রীক্ষার নম্বর ও গ্রেড নির্ণয় করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এ বি’ষয়ে শি’ক্ষা ম’ন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উ’চ্চশি’ক্ষা বিভাগের স’চিব মাহবুব হোসেন ব’লেন, ক’মিটির পাঠানো দিকনি’র্দেশনামূলক প্রস্তাব আম’রা পেয়েছি।

সেটি প’র্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। এর ও’প’রে একটি নীতিমালা প্রণয়ন করে এইচএসসি প’রীক্ষার ফল তৈরি করা হবে। প্রস্তাবটি অ’নুমোদন হলে দ্রু’ত স’ময়ের মধ্যে তা শি’ক্ষা বোর্ডগুলোতে পাঠানো হবে। চলতি মা’সের শেষের দিকে এইচএসসির ফল প্রকাশ করা হবে।

Check Also

চলতি মৌসুমে আজ ঢাকায় সর্বোচ্চ বৃষ্টি, তলিয়ে গেছে অধিকাংশ সড়ক

আজ সকালে চলতি মৌসুমে ঢাকা শহরে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে। আজ ভোর ৬টা থেকে শুরু হওয়া …