আমার সব স্বপ্ন পূরণ হয়েছে: পিয়া

মডেল, উপস্থাপক, অভিনেত্রী, আইনজীবী ও ব্যবসায়ী! সব ছাপিয়ে নতুন একটি পরিচয় যুক্ত হলো জান্নাতুল পিয়ার নামের সঙ্গে। ৭ ফেব্রুয়ারি মা হয়েছেন তিনি। মা হওয়ার অনুভূতি জানিয়ে পিয়া বলেন, ‘তা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। কোনো শব্দ, শব্দমালা যথেষ্ট না।

আমার জীবনে কিছু গোল ছিল। যেমন আমি গ্রাজ্যুয়েশন শেষ করব, আন্তর্জাতিকভাবে মডেলিং করব, আমার একটা সুন্দর সংসার থাকবে, আইনজীবী হব, আমার সংসাবরে সুখ থাকবে আর মা হব। মা হওয়াটা বাদে আর সব লক্ষ্য পূরণ হয়েছিল। মা হয়ে আমার সব স্বপ্ন পূরণ হলো। আর বাকি সব এমনিতেই সময়ের সঙ্গে হবে।’ তিনি আরও জানান, সন্তান হওয়ার পর তাঁর আর ফোনকল রিসিভ করতে ইচ্ছা করে না, ফোনে কথা বলতে ভালো লাগে না। গর্ভবতী অবস্থায়ও সমানতালে কাজ করেছেন পিয়া। অংশ নিয়েছেন বেশ কিছু ফটোশুটে। সেসব ছবি ভাইরাল হয়ে ঘুরে বেড়িয়েছে অনলাইনের দুনিয়ায়। সেসবের কিছু নিয়েই এই আয়োজন।

সন্তান কোলে নিয়ে বাবা হওয়ার অনুভূতি জানিয়ে পিয়ার ব্যবসায়ী স্বামী ফারুক হাসান সামীর বলেন, ‘এই অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। কী যে ভালো লাগছে আর ভয় ভয় লাগছে। আমি শিওর, অ্যারিস পিয়ার মতোই দুষ্টু হয়েছে।’

এই দম্পতি তাঁদের প্রথম পুত্রসন্তানের নাম ঠিক করেছেন অ্যারিস হাসান। বাম থেকে নাবিলা, পিয়া আর ভাবনা

ছবিটি পোস্ট করে পিয়া লিখেছেন, ‘টুইঙ্কেল টুইঙ্কেল লিটল স্টার, হাউ আই ওন্ডার হোয়াট ইউ আর।’


জিরো ফিগারের চেয়ে এই শরীরটাকে সৃষ্টিকর্তার বড় আশীর্বাদ মনে হচ্ছে, লিখেছেন পিয়া।


ছবিটি পোস্ট করে জান্নাতুল পিয়া লিখেছেন, ‘আমি আমার ক্যারিয়ারে অনেক ফটোশুট করেছি। কিন্তু এইটা সবচেয়ে স্পেশাল। আমি চেষ্টা করেছি একটা মেয়ে যে গর্ভবতী অবস্থায়ও তার মতো সুন্দর। সৌন্দর্যের সঙ্গে ভয়, শারীরিক প্রতিবন্ধকতা থাকে। সেটাকে অস্বীকার করার উপায় নেই। গর্ভাবস্থা কোনো অসুস্থতা নয়। বরং একজন মেয়ে কতখানি শক্তিশালী, ক্ষমতাবান, তার প্রমাণ। আমার কাছে গর্ভাবস্থা মানে গর্ব, মেয়েদের একান্ত সৌন্দর্য আর শক্তি।’

ছবিটি অ্যারিসের জন্মের আগের দিন তোলা।

পিয়ার মা হওয়ার সম্ভাব্য তারিখ ছিল ২২ ফেব্রুয়ারি। তার ১৫ দিন আগেই ফেব্রুয়ারি সিজারের মাধ্যমে জন্ম নিল এই দম্পতির প্রথম সন্তান। তবে এই মুহূর্তে তাঁরা সন্তানের ছবি প্রকাশ করতে চান না। মা আর বাচ্চা সুস্থ আছে বলে জানিয়েছেন এই বাবা।

নানা প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে সবাইকে অবাক করে দিয়ে ‘মিস বাংলাদেশ ২০০৭’ হয়েছিলেন পিয়া। সেই হলো শুরু। কলেজে পড়ার সময়ই বড় বড় সব ফ্যাশন হাউস ও ব্র্যান্ডের সঙ্গে কাজ করেছেন তিনি। আইনজীবী হওয়ার স্বপ্ন ছিল তাঁর। শেষ পর্যন্ত হয়েছেনও।

ঢাকার লন্ডন কলেজ অব লিগ্যাল স্টাডিজ থেকে আইন বিষয়ে পড়াশোনা শেষ করেছেন। ২০১৩ সালে ইন্ডানিয়ানা প্রিন্সেস মুম্বাইতে সেরা সুন্দরীর মুকুট ওঠে তাঁর মাথায়। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে বিশ্বখ্যাত ‘ভোগ’ সাময়িকীর (ভারত সংস্করণ) প্রচ্ছদের মডেল হয়েছেন তিনি।

২০১৭ ও ২০১৮ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) উপস্থাপনা করেন পিয়া। এই কাজের ধারায় আইসিসি ২০১৯ ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপেও একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের হয়ে উপস্থাপনা করতে দেখা গেছে লন্ডনের মাঠে। ২০১২ সালে রেদোয়ান রনির ‘চোরাবালি’ সিনেমার মধ্য দিয়ে বড় পর্দার খাতা খোলেন তিনি। এরপর তাঁকে বেশ কিছু সিনেমা, নাটক ও সংগীতচিত্রে দেখা গেছে। ২০১৪ সালে ফারুক হাসান সামীরকে বিয়ে করেন জান্নাতুল পিয়া

ক্যারিয়ারের এই সময়ে মা হওয়াকে কীভাবে দেখছেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে এর আগে পিয়া বলেছিলেন, ‘২৩ বছর বয়সে যখন আমি ক্যারিয়ারের সবচেয়ে ভালো সময়ে, তখনই আমি বিয়ে করলাম। কিছু নারী পরিবার, সংসার, সন্তানকেই প্রাধান্য দেন। আবার কেউ কেউ ক্যারিয়ারকেন্দ্রিক। পরিবার আসে পেশার পরে। আর আমি চেয়েছি, পরিবার, সন্তান নিয়ে ক্যারিয়ার করতে। আমি দুটোকে চমৎকারভাবে আলাদা রেখে ভারসাম্য করতে জানি। আর একজন ঠিকঠাক জীবনসঙ্গী চলার পথকে সহজ করে। তবে একজন নারী নিজের জীবনে কখন কী করবেন, এটা একান্তই তাঁর সিদ্ধান্ত। বিয়ে, সন্তান এগুলোর নারীর ব্যক্তিজীবন। আমি ব্যক্তিজীবনের সঙ্গে পেশাজীবন মেলাই না।

Check Also

সালমান খানের ক্যারিয়ার শেষ করে রাস্তায় নামাবেন তিনি!

কিছুদিন আগেই চলচ্চিত্র সমালোচক কামাল রশিদ খানের নামে মামলা করেছেন ‘রাধে’ অভিনেতা সালমান খান। এবার …