অ’স্ত্রোপচারের সময় চিকিৎসকেরা সবুজ বা নীল অ্যাপ্রন কেন পরেন জা’নেন?

সাধারণত সাদা র’ঙের অ্যাপ্রন পরেন চিকি’ৎসকেরা। কিন্তু অ’স্ত্রোপ’চার করার সময় দেখা যায় উ’ল্টো। সাদার পরিবর্তে সবুজ বা নীল রঙের অ্যাপ্রন পরে থাকতে দেখা যায় চি’কিৎসকদের।

টেলিভিশন বা ফিল্মে অনেক সময় সবুজ অ্যাপ্রনই পরে থাকতে দে’খা যায় তাদের। কেন জা’নেন? আ’সলে ভিন্ন রঙের অ্যাপ্রন পরার পিছনে রয়েছে ম’নস্তাত্ত্বিক বিষয়।

অ’স্ত্রোপ’চার মানেই র’ক্তাক্ত ব্যা’পার। যত ছোটখাটো অ’স্ত্রোপ’চার হোক না কেন, রো’গীর র’ক্তপাত হওয়াটা খুবই স্বা’ভাবিক।

সেই অ’স্ত্রোপ’চারের সময় চিকি’ৎসকদের অ্যাপ্রনে র’ক্তের দা’গ লাগবেই। যদি চিকি’ৎসকেরা সাদা রঙের অ্যাপ্রন পরেন, তাহলে তাতে র’ক্তের দা’গ দে’খতে খুবই খা’রাপ লাগে।

এমনকি অ’পারেশন টেবিলে শু’য়ে থাকা রো’গীও সেটা দেখে আ’তঙ্কিত হয়ে উ’ঠতে পারেন। বি’জ্ঞানসম্মতভাবে, সবুজ বা নীল আ’সলে লালের পরিপূরক রং। সবুজ বা নীল রঙের উপর লাল রং মি’শিয়ে দিলে, তা কালো হয়ে যায়।

সবুজ বা নীল অ্যাপ্রনের উপর কালো রং খা’রাপ মা’নসিক প্র’ভাব ফে’লে না। র’ক্ত বলে মনে না হওয়ায় রো’গীও মা’নসিক ভাবে আ’তঙ্কিত হয়ে পড়েন না।

সে কারণে শুধু অ’স্ত্রোপ’চারের সময় চিকিৎ’সকদের অ্যাপ্রনই নয়, হাসপাতালের প’র্দা থেকে শুরু করে রো’গীর বি’ছানার চাদরও বেশির ভাগ ক্ষে’ত্রেই সবুজ বা নীল র’ঙের হয়ে থাকে। সূত্র: আনন্দবাজার

Check Also

মাত্র ৩ মিনিটে হাত-পা ও পুরো শরীর ফর্সা করার কার্যকারী উপায়

হাত, পা ও পুরো শরীর- • বেসন,হলুদের গুঁড়া দুধের সাথে মিশিয়ে হাতে,পায়ে ও গায়ে মাখু’ন। …